এক বছরের অগ্রিম বাড়ী ভাড়া চাওয়ায় বাংলাদেশি এক অভিবাসীর মামলা
এইদেশ ডেস্ক, মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৯, ২০১৩


কানাডায় চাকরি এবং ক্রেডিট হিস্ট্রি না থাকার অজুহাতে এক বছরের বাড়ী ভাড়া অগ্রিম দাবি করায় মিসিস্ওাগার এক বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে মামলা করেছে বাংলাদেশি এক ইমিগ্র্যান্ট। গত সপ্তাহে একদফা শুনানীর পর মামলটি আগামী মার্চ পর্যন্ত মূলতবি করা হয়েছে।
বাংলাদেশের একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ব্যবস্থাপক হিসেবে চাকরি করা রফিকুল ইসলাম এবং তার শিক্ষিকা স্ত্রী নুরুন্নাহার ২০১০ সালে অভিবাসন নিয়ে কানাডায় আসেন। প্রথম পাচ মাস তিনি তার এক ভাইয়ের বাসায় থেকে পরে নিজের বাসায় ্ওঠার প্রস্তুতি নেন।২৩৬৫ কনফেডারেশন পার্কওয়ে মিসিসিাওগার একটি অ্যাপার্টমেন্ট এ বাড়ী ভাড়ার বিজ্ঞাপন দেখে তিনি একটি ব্যাচেলর ইউনিটের ভাড়ার জন্য আবেদন করেন এবং প্রথম ও শেষ মাসের ভাড়া অগ্রিম জমা দেন। এক সপ্তাহ পর অ্যাপার্টমেন্ট এর সুপারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তাকে বলা হয় পুরো এক বছরের ভাড়া ৮ হাজার ৮৮০ ডলার জমা না দিলে তাকে অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া দেওয়া হবে না।
সেন্টার ফর ইকোয়ালিটি রাইটস অ্যান্ড একোমোডেশন নামের একটি বেসরকারি সংস্থা রফিকুল ইসলামের পক্ষে অ্যাপার্টমেন্ট এর মালিক প্রতিষ্ঠান ট্রেভি ইনভেস্টমেন্ট এর সঙ্গে যোগাযোগ করলে প্রতিষ্ঠান থেকে জানানো হয়, নতুন ইমিগ্র্যান্ট এবং যাদের চাকরি নেই,তাদের এক বছরের অগ্রিম ভাড়া পরিশোধছাড়া তারা কোনো অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া দেন না।
রফিকুল ইসলাম এতে ক্ষুব্দ হয়ে মানবাধিকার ট্রাইব্যূনালে অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি দাবি করেন, তার জন্ম এবং কানাডায় তাঁর স্ট্যাটাস বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানটি অগ্রিম এক বছরের ভাড়া দাবি করেছে। মানবাধিকার কমিশন অভিযোগ গ্রহন করে তদন্ত শুরু করেছে।